Chorabali Logo

৮ টি এলার্জি চুলকানি দূর করার উপায়

এলার্জির কারণে শরীরে অনেক ধরনের অসংগতি তৈরি হয়। তার মধ্যে গলার এলার্জি অন্যতম। খুব সহজেই যেমন গলার এলার্জিতে মানুষ আক্রান্ত হয়ে থাকে ঠিক তেমনি গলার এলার্জি দূর করার উপায় গুলো ও বেশ সহজ। অনেকে ধুমপান করার কারণে গলার এনার্জিতে আক্রান্ত হন।

এলার্জি হওয়ার আরো কয়েকটি কারণ হলো: ঋতু পরিবর্তন, ধুলোবালি জড়িত কারণ, বিভিন্ন খারাপ মানে প্রসাধনী ব্যবহার, ফুলের পরাগ, কারখানার ধোয়া ইত্যাদি। এর মধ্যে ঋতু পরিবর্তন এবং ধুলোবালিজনিত কারণে গলার এলার্জি সবথেকে বেশি হয়ে থাকে। উল্লেখ্য গলার এলার্জিতে আক্রান্ত হলে গলা ফুলে যাওয়া, গলার স্বর ভেঙ্গে যাওয়া, গলার উপরিভাগ লাল হয়ে যাওয়া ইত্যাদি হয়ে থাকে।

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা বিভিন্ন ধরনের এলার্জি এর কারণ এবং পরিত্রাণের উপায় গুলো সম্পর্কে আলোচনা করব।

গলার এলার্জি দূর এলার্জি চুলকানি দূর করার উপায়

এলার্জি চুলকানি সাধারণত সাইকোজেনিক, নিউরোলজিক এবং নার্ভ সিস্টেমের কারণে হয়ে থাকে। আবার অনেক সময় দেখা যায় জেনেটিক কারণে এলার্জি হচ্ছে। চলুন জেনে নেই এলার্জি চুলকানি দূর করার উপায় গুলো কি কি?

  • নিমপাতা,
  • নারিকেল তেল,
  • অ্যালোভেরা,
  • লেবুর রস,
  • আপেল সিডার ভিনিগার,
  • টি-ট্রি অয়েল,
  • ঠান্ডা পানি
  • গোলাপজল।

নিমপাতা:

নিম পাতা ভালো করে ব্লেন্ড করে এলার্জি আক্রান্ত স্থানে নিম পাতার পেস্ট লাগিয়ে নিন। খুব দ্রুত ভালো ফল পাবেন।

নারিকেল তেল:

এলার্জি চুলকানি স্থানে নারকেল তেল লাগিয়ে রাখলে খুব দ্রুত চুলকানি এবং ব্যথা দুটোই কমে যাবে।

অ্যালোভেরা:

এলার্জি কমানোর জন্য এলোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। এলোভেরার পাতা থেকে এর জেল নিয়ে আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে রাখলে খুব দ্রুত এলার্জির প্রকোপ কমে যাবে।

লেবুর রস:

এলার্জির কারণে চুলকানি হলে আক্রান্ত স্থানে লেবুর রস লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। দেখবেন আস্তে আস্তে চুলকানি কমে যাবে।

আপেল সিডার ভিনিগার:

এক কাপ পানিতে এক চা চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে এলার্জি আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে নিন। প্রতিদিন দুইবার ব্যবহার করলে কয়েকদিনে এলার্জি কমে যাবে।

টি-ট্রি অয়েল:

টি-ট্রি অয়েল এ বিদ্যমান অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টিআইনফ্লেমেটরি উপাদান দ্রুত এলার্জি কমাতে সাহায্য করে। এই অয়েলটি সামান্য আপেল সিডার ভিনেগার অথবা সামান্য পানিতে মিশিয়ে ব্যবহার করতে হবে।

ঠান্ডা পানি:

এলার্জির চুলকানি কমাতে আক্রান্ত স্থানে ঠান্ডা পানি অথবা বরফ ব্যবহার করুন। ঠান্ডা পানি ব্যবহারের ফলে এলার্জির ফোলা ভাব এবং চুলকানি কমে যাবে।

গোলাপজল:

এলার্জির ফলে চুলকানি সৃষ্টি হলে গোলাপ জল ব্যবহার করতে পারেন। এলার্জি আক্রান্ত স্থানে কয়েক ফোঁটা গোলাপজল লাগিয়ে রাখলে আস্তে আস্তে এলার্জি কমে যাবে।

এলার্জি চুলকানি ঔষধের নাম

বাজারে বিভিন্ন ব্রান্ডের এলার্জি চুলকানির ঔষধ পাওয়া যায়। নিচে কিছু এলার্জি চুলকানি ঔষধের নাম উল্লেখ করা হলো:

এলার্জি চুলকানি ঔষধের নাম মিলিগ্রাম মূল্য
এলাট্রল ট্যাবলেট (alatrol tablet) ১০ গ্রাম ২৭ টাকা 
ফেক্সোফ্যানারডিন ট্যাবলেট (fexofenadine tablet) ১২০ গ্রাম ৫৯ টাকা ৫০ পয়সা
অ্যালিগরা এলার্জি ট্যাবলেট(allegra allergy tablet) ১২০ গ্রাম ৫৪ টাকা
অক্সাসিলিন (Oxacillin) ১০ গ্রাম ২৫৫ টাকা
পেনিসিলিন জি (Penicillin G) ২৫০ মিলিগ্রাম ২ টাকা ৫ পয়সা
পেনিসিলিন ভি (Penicillin v) ২৫০ মিলিগ্রাম ১ টাকা ৩৭ পয়সা
টেল ফাস্ট ট্যাবলেট (telfast tablet) ১২০ গ্রাম ৯২ টাকা।

স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তির উপায়

স্কিন এলার্জি ছোট শিশু থেকে বয়স্ক ব্যক্তি যে কারো হতে পারে। এবং এটি খুব অস্বস্তির কারণ। স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তি পেতে কয়েকটি উপায় অনুসরণ করতে পারেন। স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তির উপায় গুলো হল:

  • সজিনা পাতা,

  • তুলসী পাতা,

  • বেকিং সোডা,

  • পুদিনা পাতা,

  • ফিটকিরি পানি ইত্যাদি।

স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তি পেতে সজিনা পাতা, তুলসী পাতা, এবং পুদিনা পাতা ব্যবহার করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে আপনার কাছে যেটি সহজলভ্য সেই পাতার টেস্ট তৈরি করে আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে রাখুন। এতে খুব দ্রুত স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তি পাবেন।

বেকিং সোডা ব্যবহারের ক্ষেত্রে আগে থেকে কিছুটা পানির সঙ্গে বেকিং সোডা গুলিয়ে রাখতে হবে। আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে রাখুন এলার্জি না কমা পর্যন্ত।

ফিটকিরি পানি এলার্জি কমাতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে এলার্জিতে যেখানে চুলকাবে এই স্থানে ফিটকিরি পানি লাগিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখলেই দেখবেন চুলকানি অনেকটা কমে এসেছে।

মুখে এলার্জি দূর করার ক্রিম

মুখে এলার্জি দূর করার ক্রিম সম্পর্কে অনেকেই জানতে চান। কারণ বাজারে বিভিন্ন নকল ব্রান্ডের এলার্জি দূর করার ক্রিম রয়েছে। তাই আজকে আমরা আপনাদের মুখে এলার্জি দূর করার ক্রিম এর নাম জানাবো:

  • Ornordo Cream,
  • Drem cream,
  • Taf Plus cream,
  • Tocoderm plus,
  • panderm,

এই ক্রিমগুলো বাজারে সর্বাধিক মুখে এলার্জি দূর করার জন্য বিক্রি হয়ে থাকে। আপনি চাইলে আপনার স্কিনের সঙ্গে মানানসই উপরি উল্লিখিত যেকোনো একটি ক্রিম কিনে ব্যবহার করতে পারেন।

শেষ কথা

বিভিন্ন কারণে আমরা প্রতিনিয়ত এলার্জি সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে থাকি। তার মধ্যে আমরা অনেকেই খাবার জনিত এলার্জিতে আক্রান্ত হই। যাদের খাবারে এলার্জি রয়েছে তাদের বিভিন্ন রকম খাবার বেছে চলা উচিত। এতে করে এলার্জির প্রকোপ অনেকটা কমে আসবে। 

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা গলার এলার্জি দূর করার উপায় সম্পর্কে আপনাদের ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি। সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়লে আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন।

বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

১)গলা চুলকানির জন্য কোন ঔষধ ভালো?

উত্তর: Benadryl, Claritin ঔষধ গলা চুলকানির জন্য খুবই ভালো।

২)সিজনাল এলার্জি কি গলা ব্যাথা করে?

উত্তর: সিজনাল এলার্জিতে গলার ভেতরে ব্যথা অনুভূত হয়। এটা সাধারণত ঠান্ডা জনিত ব্যথা। তাছাড়া অন্যান্য সিজনে খাবারে এলার্জি এবং পরিবেশগত কারণে গলা ব্যথা হয়।

৩)এলার্জি হলে গলা বন্ধ হয়ে আসছে কিভাবে বুঝবেন?

উত্তর: শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত সমস্যা হলে বোঝা যায় এলার্জির কারণে গলা বন্ধ হয়ে আসছে।

৪)এলার্জি চুলকানি ঔষধের নাম কি?

উত্তর: Histakind 120 MG Tablet, Alernex 120 MG Tablet এলার্জি চুলকানির জন্য খুব ভালো কাজ করে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top