Chorabali Logo
স্বাস্থ্য

কোন কোন মাছে কোলেস্টেরল আছে

কোলেস্টেরল রোগীদের খাবার গ্রহণে সীমাবদ্ধতা রয়েছে। তারা চাইলেই সব ধরনের রান্না করা খাবার এবং মাছ খেতে পারেন না। অনেক কোলেস্ট্রেরল রোগীরাই প্রশ্ন করে থাকেন কোন কোন মাছে কোলেস্টেরল আছে? তাদের জন্যই সাজানো হয়েছে আমাদের আজকের আর্টিকেল।

সাধারণত ইলিশ, চিংড়ি, পাঙ্গাস এবং এক কেজি ওজনের বেশি অধিকাংশ মাঝে কোলেস্টেরল থেকে থাকে। যাদের জিনগত কারণে কোলেস্টেরল রয়েছে তারা ১০০ গ্রামের বেশি ওজনের ইলিশ মাছ না খাওয়াই ভালো। ডায়েটিশিয়ানদের মতে, শরীরের কোন খারাপ অবস্থাতেই মাছ এড়িয়ে যাওয়া উচিত নয়। কারণ এতে রয়েছে ফাস্ট ক্লাস প্রোটিন।

তবে কোলেস্টেরল রোগীরা ছোট মাছ খাওয়ার চেষ্টা করবেন। এবং এক কেজি উপরের ওজনের মাছ এড়িয়ে চলবেন। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা কোন কোন মাছে কোলেস্টেরল আছে এ বিষয়ে আলোচনা করব।

কোন মাছ খেলে কোলেস্টেরল ভালো হয়

সাধারণত যেসব মাছের গুড ফ্যাট রয়েছে সেগুলো কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। বিভিন্ন ছোট সাইজের সামুদ্রিক মাছ কোলেস্টেরল কমানোর ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে। মাছগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো স্যামন, টুনা ফিস, সার্ডিন মাছ ইত্যাদি কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।

তাছাড়াও ওমেগা ৩ ফাটি এসিড সমৃদ্ধ সব ধরনের মাছ কোলেস্টেরল কমায়। বিভিন্ন দেশী মাছ যেমন ছোট টেংরা, পুটি, বেলে, পারশে, দেশি শিং এবং মাগুর, মলা এবং ঢেলা মাছ, দেশি ছোট সাইজের পাবদা ইত্যাদি কোলেস্টেরল রোগীরা খেতে পারেন।

এসব মাছগুলো সরাসরি কোলেস্টেরল না কমালেও কোলেস্টেরল বাড়ার ঝুঁকি অনেকটাই  কমিয়ে দেয়। তবে এ মাছগুলো রান্না করার সময় কম তেল মসলা ব্যবহার করা উচিত।

কোন কোন মাছ কোলেস্টেরল রোগীর জন্য ভালো?

কোলেস্টেরল রোগীরা সাধারণত বড় মাছ খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করবেন। রুই, কাতলা ইত্যাদি ধরনের মাছ এক কেজি ওজনের বেশি হওয়া যাবে না। 

কারণ এই ধরনের মাছ একটু বড় হলেই খারাপ কোলেস্টেরল জমতে শুরু করে। যা কোলেস্টেরল রোগীদের ক্ষেত্রে অত্যন্ত ক্ষতিকর। কোলেস্টেরল রোগীরা ছোট সাইজের দেশি মাছ এবং সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

 ইলিশ মাছে কি কোলেস্টেরল আছে

ইলিশ মাছ স্বাদে অতুলনীয় হলেও কোলেস্টেরল এবং ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য একটু বেশিই ক্ষতিকর। কারণ এই মাছ খেলে ব্লাড সুগার এবং কোলেস্টেরল দুটোই বেড়ে যেতে পারে। তবে কোলেস্টেরল রোগীরা যে একেবারেই ইলিশ মাছ খেতে পারবে না এমন নয়। এসব রোগীরা ১০০ গ্রাম ওজন বা এর কম ওজনের ইলিশ মাছ খেতে পারবেন।

চিংড়ি মাছে কি কোলেস্টেরল আছে

ইলিশ মাছের মত চিংড়ি মাছেও হাই কোলেস্টেরল থাকে। আমরা সামুদ্রিক মাছ থেকে যে কোলেস্টেরল পেয়ে থাকি চিংড়ি মাছের কোলেস্টেরল তার প্রায় ৮৫ গুন বেশি। নিয়মিত চিংড়ি মাছ খাওয়ার ফলে হার্টের সমস্যা বেড়ে যেতে পারে। 

কোলেস্টেরল রোগীরাশ সপ্তাহে এক থেকে দুই দিন ছোট সাইজের চিংড়ি গুলো খেতে পারবেন। একটা বড় সাইজের চিংড়িতে প্রায় ২০০ মিলিগ্রাম কোলেস্টেরল থাকে। যা কোলেস্টেরল রোগীদের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

মাছে কোলেস্টেরল ভালো নাকি খারাপ

আমাদের নিত্য ব্যবহৃত সব খাদ্যে কোলেস্টেরল থাকে। কিছু মাছে কোলেস্টেরল আমাদের শরীরের জন্য ভালো। আবার কিছু কিছু মাছের কোলেস্ট্রেরল গ্রহণে আমাদের শরীর হয়ে যায় অসুস্থ। আপনি যদি কোলেস্টেরল রোগী হয়ে থাকেন তাহলে নিয়মিত আপনার ডায়েটে ছোট মাছ অন্তর্ভুক্ত করুন।

উপসংহার

মাছ প্রায় সব বাঙালি পরিবারের প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় থাকে। যা সব বয়সী মানুষের প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করতে সাহায্য করে। আবার কোলেস্টেরল রোগীদের সংখ্যা ও দিন দিন বেড়ে চলছে। কিন্তু কোলেস্টেরল রোগীদেরও শরীর সুস্থ রাখার জন্য মাছ খাওয়া উচিত। কোন কোন মাছে কোলেস্টেরল আছে এটা প্রথমে জেনে নিই এই অবশ্যই কোলেস্টেরল রোগীদের মাছ খেতে হবে।

বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

১)মাছের ডিম খেলে কি কোলেস্টেরল বাড়ে?

উত্তর: মাছের ডিমে অতিরিক্ত পরিমাণে সোডিয়াম থাকার কারণে এটি কোলেস্টেরল বাড়াতে সাহায্য করে।

২)রক্তে কোলেস্টেরল বেশি হলে কি হয়?

উত্তর: রক্তে কোলেস্টেরল বেশি হলে স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা অনেকক্ষণ বেড়ে যায়।

৩)স্বাভাবিক কোলেস্টেরল কত?

উত্তর: স্বাভাবিক কোলেস্টেরল এর মাত্রা হলো ২০০ডিএল এর কম।

Mahedi

পেশায় একজন চাকরিজীবী আমি। লেখালিখির শখ অনেক আগে থেকেই। এই শখকে পুজি করে মানুষের মাঝে জ্ঞান বিতরণের সামান্য চেষ্টা আমার। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখালিখি করতে বেশি পছন্দ করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also
Close