Chorabali Logo

খাদ্যের উপাদান কয়টি ও কি কি

খাদ্য বলতে সেই সব আহার্য সামগ্রীকে বোঝায় যা আমাদের দেহের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করে, রোগ প্রতিরোধ করে এবং তাপ শক্তি উৎপাদন করে। খাদ্যের উপাদান কয়টি এ প্রশ্নের সঠিক উত্তর হল খাদ্যের উপাদান ছয়টি।

উৎপাদন অনুযায়ী বিভক্ত করলে খাদ্যবস্তুকে ৬ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। সেগুলো হলো: আমিষ, শর্করা এবং স্নেহজাতীয় খাদ্য, প্রোটিন, খনিজ লবণ, পানি। এই সবগুলো উপাদান যখন আমাদের খাবারে নিহিত থাকে তখন তাকে সুষম খাদ্য বলা হয়। অনেকেই জিজ্ঞেস করেন সুষম খাদ্যের উপাদান কয়টি?

খাদ্যের উপাদান ৬ টি

  1. শর্করা,
  2. আমিষ বা প্রোটিন,
  3. স্নেহপদার্থ,
  4. ভিটামিন  ,
  5. খনিজ লবণ এবং
  6. পানি।

সুষম খাদ্যের উপাদানও ছয়টি। সুষম খাদ্যের ছয়টি উপাদানের নাম হল: শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট, আমিষ, খাদ্য প্রাণ, ফ্যাট অথবা চর্বি, খনিজ লবণ এবং পানি। এই আর্টিকেলে আমরা খাদ্যের উপাদান কয়টি এবং এর উৎস সমূহ নিয়ে আলোচনা করব।

শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট

কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবারকে শর্করা বলে। কার্বন, হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন শর্করার মূল বা প্রধান উপাদান । শর্করার প্রধান কাজ আমাদের শরীরের শক্তির যোগান দেওয়া।

  1. ফল,
  2. ফুল,
  3. বীজ ,
  4. চিনি,
  5. মধু,
  6. মিষ্টি ফল,
  7. আখের রস,
  8. খেজুর রস,
  9. চাল,
  10. গম,
  11. ভুট্টা,
  12. আলু,
  13. দুধ ইত্যাদি।

এই খাবার গুলোতে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে শর্করা থাকে। আমাদের শরীর পরিচালনার জন্য শর্করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ । তবে অতিরিক্ত শর্করা গ্রহণ করা ঠিক না। ডায়েবেটিক্স সহ অনেক বড় বড় রোগের কারণ এই শর্করা। খাদ্যের উপাদান কয়টি ও কি কি এমন প্রশ্নে শর্করার নাম প্রথমে আসে।

আরও >> গর্ভাবস্থায় কি খেলে বাচ্চা বুদ্ধিমান হয়? 

সুষম খাদ্যের উপাদান কয়টি ও কী কী

ইতোমধ্যেই আমরা আলোচনা করেছি যে সুষম খাদ্যের উপাদান হল ছয়টি। সুষম খাদ্যের ইংরেজি নাম হল ব্যালেন্স ডায়েট। সুষম খাদ্যের এই ছয়টি উপাদান মানুষের শরীরে যাবতীয় পুষ্টির চাহিদা মেটায়। 

প্রতিবেলার খাবারে খাদ্যের এই ছয়টি উপাদান নিহিত থাকা জরুরী। এবং এই ছয়টি অনুপাতের পরিমাণ হবে ৪:১:১। আমাদের প্রতিদিন যে ক্যালরি ব্যয় হয় তার প্রায় ৭০ ভাগ আসে শর্করা থেকে। ১০ ভাগ আমিষ গ্রহণ করা উচিত। এবং স্নেহ জাতীয় খাদ্যদ্রব্যের পরিমাণ হবে ৩০ থেকে ৪০ ভাগ।

খাদ্য পিরামিডের দিক থেকে বিবেচনা করলে কয়েকটি খাবার কে সুষম খাবার বলা যেতে পারে। খাবার গুলোর নাম হল:

  • শস্যদানা: ভাত, রুটি ইত্যাদি।
  • স্নেহ জাতীয় খাদ্য: মাখন, ঘি, তেল, সব ধরনের চর্বি এবং মিষ্টি জাতীয় খাবার এবং লবণ।
  • প্রোটিন: সব ধরনের মাছ এবং মাংস, ডিম, সব ধরনের ডাল প্রোটিনের খুব ভালো উৎস।
  • ভিটামিন এবং খনিজ লবণ: সকল ধরনের সবুজ শাকসবজি এবং মৌসুমী ফলমূল ভিটামিন এবং খনিজ লবনের মূল উৎস।
  • পানি:  এই সবগুলো খাবার কে ভালোভাবে পরিপাক করার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি প্রয়োজন।

আশা করি আপনারা যারা জানতে চেয়েছিলেন সুষম খাদ্যের উপাদান কয়টি ও কি কি তারা খাদ্যের উপাদান সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

সুষম খাদ্যের প্রয়োজনীয়তা

সুষম খাদ্য ব্যতীত একটি সুস্থ শরীর আশা করা যায় না। শরীরকে কর্মক্ষম রাখা এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর সুষম খাদ্যের বিকল্প নেই।

তবে সুষম খাদ্য আমাদের শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলেও এটি পরিমিত পরিমাণে খেতে হবে। নিচে আমরা সুষম খাদ্যের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আলোচনা করব:

  • শরীরকে কর্মক্ষম রাখা এবং শরীরে শক্তি যোগানোর জন্য সুষম খাদ্যের বিকল্প নেই।
  • পরিমিত পরিমাণে সুষম খাদ্য গ্রহণ না করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে থাকবে।
  • নিয়মিত সুষম খাদ্য গ্রহণ না করলে কর্মক্ষমতা ধীরে ধীরে হ্রাস পেতে থাকে।
  • শিশুকে নিয়মিত সুষম খাবার খাওয়াতে হবে। শিশু প্রয়োজনমতো সুষম খাদ্য না পেলে তো স্বাভাবিক বৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হবে। এবং প্রয়োজন অনুযায়ী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হবে না।
  • সুষম খাদ্য গ্রহণের ক্ষেত্রে বয়স এবং পেশা অনুযায়ী পরিমাণ নির্ধারণ করতে হবে। কারণ পরিমাণের তুলনায় সুষম খাবার কম কর্মক্ষমতা হ্রাস পাবে এবং বেশি গ্রহণ করলে শরীর স্থূলকায় হয়ে পড়বে।

শেষ কথা

খাদ্যের উপাদান কয়টি ও কী কী এটি জেনে রাখা সবার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সুষম খাদ্য গ্রহণের মাধ্যমে শরীরে বৃদ্ধিসাধন হয় এবং যাবতীয় ক্ষয় পূরণ হয়ে থাকে। যাদের পরিশ্রমের মাত্রা বেশি তাদের সুষম খাদ্য একটু বেশি পরিমাণে গ্রহণ করা উচিত।

কিন্তু যারা কম পরিশ্রমী তাদের সুষম খাদ্য গ্রহণের ক্ষেত্রে খুবই সচেতনতা অবলম্বন করতে হবে। প্রয়োজনের তুলনায় বেশি খাবার গ্রহণ করা একদমই ঠিক না।

বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

১)খাদ্যের ৫টি প্রধান উপাদান কি কি?

উত্তর: শর্করা, আমিষ, ভিটামিন, খনিজ লবণ, স্নেহ জাতীয় খাদ্য এবং পানি।

২)পুষ্টিকর খাদ্য বলতে কি বুঝায়?

উত্তর:যে সব খাবার ভিটামিন, খনিজ লবণ, শর্করা, অ্যামিনো এসিড, খাদ্যতালিকাগত ফাইবার এর চাহিদা পূরণ করে তাকে পুষ্টিকর খাদ্য বলে।

৩)নিচের কোনটি পুষ্টি উপাদান যা মানুষের জন্য শক্তি সরবরাহ করে?

উত্তর: শর্করা মানুষের শরীরের শক্তি সরবরাহ করে।

৪)শরীরের ৬০ ভাগ পুষ্টি কোনটি?

উত্তর: পানি।

৫)পানির প্রধান পুষ্টি উপাদান কোনটি?

উত্তর: ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ক্লোরাইড, ফ্লোরাইড, ম্যাগনেসিয়াম।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top