Chorabali Logo
স্বাস্থ্য

গর্ভাবস্থায় পেঁপে খেলে কি হয়

গর্ভবতী নারীদের সব ধরনের পুষ্টিকর খাবার খাওয়া জরুরী। এ সময় গর্ভবতী নারীদের বিভিন্ন ধরনের মৌসুমী সবজি এবং ফলমূল খেতে দেওয়া হয়। পাকা পেঁপে এবং কাঁচা পেঁপে দুটোই অধিক পরিমাণে পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ। পেঁপে খেলে শরীরের কর্ম ক্ষমতা বাড়ে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে কিছু খাবার এড়িয়ে চলতে হয়। যার মধ্যে পেঁপে অন্যতম।

 গর্ভাবস্থায় পেঁপে খেলে কি হয় এর সঠিক উত্তর হল কাঁচা পেঁপে এবং পাকা পেঁপে দুটোই গর্ভপাত ঘটাতে পারে। গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কাঁচা পেঁপে বেশি ক্ষতিকর। ল্যাটেক্স নামক একটি উপাদান কাঁচা পেঁপেতে বিদ্যমান থাকে। এই উপাদানটি গর্ভপাত ঘটাতে পারে। তাছাড়া কিছু পুরনো ইতিহাস থেকে বিশ্বাস করা হয় যে পেঁপে খেলে গর্ভপাত হয়। নিচে আমরা সেগুলো সম্পর্কে আলোচনা করব।

গর্ভাবস্থায় রান্না করা পেঁপে খেলে কি হয়

পেঁপেতে থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান পেপাভেরিন ক্যারোটিন ভাস্কুলার এর চাপ বৃদ্ধি করে থাকে। এর ফলে প্লাসেন্টার উপরে অধিকতর চাপ সৃষ্টি হয়। প্লাসেন্টার উপরেও অধিক চাপের ফলে যেকোনো সময় গর্ভবতী নারীদের রক্তপাত ঘটতে পারে। 

গর্ভাবস্থায় রান্না করা পেঁপে খেলে কি হয়? এর উত্তরও একই হবে। রান্না করা পেঁপেতে থাকে প্রোটিওলাইটিক এনজাইম নামক উপাদান। এটি গর্ভবতী নারীর জরায়ুর সংকোচন ঘটায় এবং হজমে বিভিন্ন রকমের জটিলতা সৃষ্টি করে। গর্ভাবস্থায় প্রথম তিন মাস পেঁপে একজন গর্ভবতী নারীর জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে। তাই এই সময় কাঁচা পেঁপে এবং পাকা পেঁপে পুরোপুরি এগিয়ে চলুন।

গর্ভাবস্থায় কাঁচা পেঁপের তরকারি খেলে কি হয়

কাঁচা পেঁপে এবং পাকা পেঁপে তে থাকা পেপাইন এনজাইম পূর্বে মিশরীয়রা উটের গর্ভপাত ঘটানোর জন্য ব্যবহার করত। তখন থেকেই এটি একটি রীতিতে পরিণত হয়েছে। তাছাড়াও গর্ভবতী মহিলাদের কাঁচা পেঁপে তরকারি খেলে অনেক সময় ল্যাটেক্স থেকে এলার্জি হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

 যা বেশ কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। প্রথম ট্রাইমেস্টার এর পরে কাঁচা পেঁপে এবং পাকা পেঁপে দুটোই সামান্য পরিমাণে খাওয়া যায়। তবে একদম প্রথম থেকেই সামান্য পরিমাণে পাকা পেঁপে খাওয়া যেতে পারে। এতে ক্ষতির আশঙ্কা কম থাকে।

কাঁচা পেঁপে খেলে কি বাচ্চা নষ্ট হয়

বারডেম হাসপাতালের গাইনি বিভাগের অধ্যাপক ডা. সামছাদ জাহান শেলী বলেন- গর্ভাবস্থায় যে কোন খাবার গ্রহণের আগে এর ভালো এবং মন্দ দিক জেনে রাখা জরুরী। তিনি বলেন কাঁচা পেঁপেতে পেপাইন নামক একটি উপাদান রয়েছে। যা গর্ভস্থ শিশুর জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে। এটি জরায়ু সংকোচন করে রক্তপাত ঘটাতে পারে। পেঁপেতে রয়েছে বেঞ্জিল আইসোথিয়োকানেট নামক উপাদান। যা গর্ভস্থ শিশুর শরীরে বিষক্রিয়া ঘটাতে পারে।

গর্ভাবস্থায় পেঁপের তরকারি খেলে কি হয়

আমরা পূর্বেই আলোচনা করেছি, কাঁচা পেপেতে লেটেক্স নামক উপাদান থাকে। এটি গর্ভস্থ শিশুর বিভিন্ন রকমের ক্ষতিসাধন করতে পারে। চলুন এক নজরে দেখে নিই গর্ভাবস্থায় পেঁপের তরকারি খেলে কি হয়?

  • গর্ভাবস্থায় হরমোনের নিঃসরণ জরুরী, কাঁচা পেঁপে হরমোনের নিঃসরণ কমিয়ে দেয়।
  • কাঁচা পেঁপেতে বিদ্যমান অক্সোটসিন এবং পোস্টাগ্লাডিনের মতো উপাদান দ্রুত প্রসব ব্যথা বাড়িয়ে দেয়। তাই গর্ভস্থ মহিলাদের সন্তান ডেলিভারির কিছুদিন আগে কাঁচা পেঁপে খাওয়া উচিত।
  • কাঁচা পেঁপে এবং পাকা পেঁপে উভয় ই এলার্জি তৈরি করতে পারে। তাই গর্ভাবস্থায় কাঁচা পেঁপে এড়িয়ে চলুন।

গর্ভাবস্থায় কাঁচা পেঁপে খেলে কি হয়

গর্ভাবস্থায় তখনই কাঁচা পেঁপে সম্পূর্ণভাবে এগিয়ে চলুন যখন আপনার শরীরে এলার্জি সমস্যা আছে এবং হরমোনের সমস্যা আছে। কাঁচা পেঁপে এই দুটোতেই বিঘ্ন ঘটাতে পারে। এই সময় কাঁচা পেঁপে অ্যাভয়েড করলে গর্ভস্থ শিশুটি সঠিকভাবে বেড়ে উঠবে। গর্ভাবস্থায় কাঁচা পেঁপে খেলে গর্ভস্থ শিশুর শরীরে বিভিন্ন রকমের বিষক্রিয়া তৈরির ফলে গর্ভপাত হতে পারে।

শেষ কথা

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা গর্ভাবস্থায় পেঁপে খেলে কি হয় এবং গর্ভস্থ শিশুর জন্য কাঁচা পেঁপে এবং পাকা পেঁপের ক্ষতিকর দিক তুলে ধরেছি। যারা গর্ভবতী এবং পেঁপে খাবেন কিনা ভাবছেন তাদের জন্য আজকের আর্টিকেলটি গুরুত্বপূর্ণ হবে। তাই সবশেষে বলবো, গর্ভাবস্থায় প্রথম তিন মাসে কাঁচা পেঁপে এড়িয়ে চললেও শেষের তিন মাস সামান্য পরিমাণে কাঁচা পেঁপে খেতে পারবেন।

বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

১) গর্ভবতী হলে কি কি ফল খাওয়া যাবে না?

উত্তর: পেঁপে, আনারস, আঙ্গুর।

২)পানি খেলে কি অ্যামনিওটিক ফ্লুইড বাড়ে?

উত্তর: গর্ভাবস্থায় প্রচুর পানি খেলে অ্যামনিওটিক ফ্লুইড এর পরিমাণ বাড়ে।

৩) গর্ভাবস্থায় কত লিটার পানি পান করতে হবে?

উত্তর: গর্ভকালীন সম্পূর্ণ সময়ে তিন লিটার করে প্রতিদিন পানি পান করুন।

Mahedi

পেশায় একজন চাকরিজীবী আমি। লেখালিখির শখ অনেক আগে থেকেই। এই শখকে পুজি করে মানুষের মাঝে জ্ঞান বিতরণের সামান্য চেষ্টা আমার। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখালিখি করতে বেশি পছন্দ করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also
Close