Chorabali Logo

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে উক্তি, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কবিতা, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ছন্দ

সম্মানিত ভিউয়ার্স আপনাদের সকলের উদ্দেশ্যে আজকে আমরা একটি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আলোচনা নিয়ে হাজির হয়েছি। মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতির ইতিহাসের একটি শ্রেষ্ঠ যুদ্ধ এ যুদ্ধের মাধ্যমে মূলত বাঙালি জাতি তাদের অধিকার ও স্বাধীনতা লাভ করেছিল তাইতো বাঙালি জাতির ইতিহাসে মুক্তিযুদ্ধ অনেকটা জায়গা দখল করে আছে। এই যুদ্ধটি ১৯৭১ সালে সংঘটিত হয়েছিল। এ যুদ্ধের পটভূমি বর্তমান সময়ের তরুণ তরুণীদের অজানা রয়েছে তাই তো অনেকেই মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বিভিন্ন ধরনের কবিতা ছন্দ অনুসন্ধান করেন তাদের উদ্দেশ্যে আজ আমরা মুক্তিযুদ্ধ মুক্তি কবিতা ও ছন্দ গুলো উপস্থাপন করেছি। আশা করা যায় আমাদের এই মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কবিতা উক্তি ও ছন্দ গুলো প্রতিটি তরুণ তরুণীর মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত করতে এবং মুক্তিযোদ্ধাদের ইতিহাস ঐতিহ্য সম্পর্কে জানতে সাহায্য করবে।

বাঙালি ইতিহাস একটি গৌরবময় যুদ্ধের নাম হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ। যা ১৯৭১ সালে ২৬ শে মার্চ থেকে ১৬ই ডিসেম্বর পর্যন্ত চলেছিল। এ যুদ্ধের ইতিহাস যতদিন বাংলার ইতিহাস পৃথিবীতে থাকবে ততদিন সকলের কাছে স্মরণীয় হয়ে রবে। কেননা ইতিহাসের প্রথম যুদ্ধ হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ যে যুদ্ধ বাঙালি জাতি তাদের অধিকার আদায়ের জন্য করেছিল এবং নিজের স্বাধীনতার জন্য করেছিল। ১৯৭১ সালের পঁচিশে মার্চ কালরাত্রে যখন ঘুমন্ত বাঙালির উপর পাকিস্তানি সেনারা আক্রমণ করে যখন বাংলার প্রতিটি মায়ের কোল থেকে তাদের সন্তানদের পাকিস্তানি হিংস্র বাহিনীরা হত্যা করে তখন বাংলার দামাল ছেলেরা তা মেনে নেয়নি বরং তারা পাকিস্তানি বাহিনীর সাথে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে থাকে এবং তাদের দমন করার চেষ্টা চালায়। এই যুদ্ধের পটভূমি লক্ষ্য করলে দেখা যায় তৎকালীন বাংলাদেশ নামে কোন রাষ্ট্র ছিল না বরং এটি পূর্ব বাংলা নামে পরিচিত ছিল এটি ছিল পশ্চিম পাকিস্তানের একটি অংশ যেখানে পশ্চিম পাকিস্তানিরা প্রতিটি সাধারণ মানুষের উপর অন্যায় চালাত এবং তাদের অধিকার হরণ করত। পশ্চিম পাকিস্তানিদের এই অন্যায় ও অত্যাচার থেকে বাঙালি জাতি নিজেকে রক্ষা করার জন্যই মূলত মুক্তিযুদ্ধ নাম ক যুদ্ধে পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে লড়াই করে এবং অবশেষে তারা বিজয় লাভ করে এবং স্বাধীন বাংলাদেশের সূচনা করে।

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে উক্তি

মুক্তিযুদ্ধ বাঙালির ইতিহাস একটি গৌরবময় যুদ্ধ। এই যুদ্ধের মাধ্যমে মূলত স্বাধীন বাংলাদেশের জন্ম হয় এবং বাঙালি তাদের অধিকার ফিরে পায় ও স্বাধীনভাবে জীবন যাপন করার সুযোগ পায়। মুক্তিযুদ্ধ তাই তো প্রতিটি বাঙালি হৃদয়ে চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে। মুক্তিযুদ্ধে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় লাভ করার কারণে মূলত প্রতিবছর এই বিজয়কে স্মরণ করার জন্য ১৬ই ডিসেম্বর পালিত হয় বিজয় উৎসব। এই বিজয়ী উৎসব উদযাপনের মাধ্যমে বর্তমান প্রজন্মের প্রতিটি মানুষের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত করা হয় এবং ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়। তাইতো অনেকেই মুক্তিযোদ্ধাদের পটভূমি জানতে জ্ঞানী গুণীজনদের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে উক্তিগুলো জানতে চান তাদের উদ্দেশ্যে আজকের আলোচনায় মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বেশ কিছু উক্তি তুলে ধরা হয়েছে।

এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম

– বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

আমি, মেজর জিয়া, বাংলাদেশ লিবারেশন আর্মির প্রাদেশিক কমাণ্ডার-ইন-চিফ, শেখ মুজিবর রহমানের পক্ষে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করছি

– জিয়াউর রহমান

আমার শেষ সংগ্রাম বাংলাদেশকে স্বাধীন করা, সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, ভারতের সহিত কনফেডারেশন। এই তিন কাজের সাধন ইনশাল্লাহ আমার জীবিতকালে দেখার প্রবল ইচ্ছা অন্তরে পোষন করি।

– আবদুল হামিদ খান ভাসানী

বলা হয়, এত লক্ষ লোক শহীদ হয়েছে। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে যে, আসলে কত শহীদ হয়েছে মুক্তিযুদ্ধে, এটা নিয়েও বিতর্ক আছে।

– খালেদা জিয়া

মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানকে সমর্থনকারী ‘শক্তিধর দেশের’ শিকার হয়েই বঙ্গবন্ধুকে জীবন দিতে হয়েছে

– প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আলবদর, একটি নাম! একটি বিস্ময়! আলবদর একটি প্রতিজ্ঞা! যেখানে তথাকথিত মুক্তিবাহিনী, আলবদর সেখানেই।

– মতিউর রহমান নিজামী

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কবিতা

আগামীর বাংলাদেশ কিংবা নবপ্রজন্মের প্রতিটি মানুষের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও ঐতিহ্য তুলে ধরার জন্য অনেক কবি সাহিত্যিক মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বিভিন্ন ধরনের কবিতা লিখেছেন যেখানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তুলে ধরা হয়েছে তুলে ধরা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি এবং মুক্তিযোদ্ধাদের ইতিহাস। এই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ভিত্তিক কবিতা গুলো মূলত বাংলাদেশের নবীন প্রজন্মের প্রতিটি তরুণ তরুণীর মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত করতে সাহায্য করবে এবং সেই সাথে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও ঐতিহ্য খুঁটিনাটি সকল বিষয় সুস্পষ্টভাবে জানতে সাহায্য করবে। এজন্য আজকে আমরা মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কবিতা গুলো আপনাদের মাঝে নিয়ে এসেছি তাই আপনারা যারা মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক কবিতা গুলো সংগ্রহ করতে চান তারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে সকল কবিতা দেখে নিন।

স্বাধীনতা তুমি,

রবীন্দ্র ঠাকুরের অজর কবিতা অবিনাশী গান।

স্বাধীনতা তুমি,

কাজী নজরুল ঝাঁকড়া চুলের বাবরি দোলানো;

মহাপুরুষ সৃষ্টি সুখের উল্লাসে কাঁপা স্বাধীনতা তুমি।

শহীদ মিনারে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির,

উজ্জ্বল সভা স্বাধীনতা তুমি।

স্বাধীনতা তুমি,

পতাকা শোভিত স্লোগান মুখর ঝাঁঝালো মিছিল।

ফসলের মাঠে কৃষকের হাসি,

স্বাধীনতা তুমি,

রোদেলা দুপুরে মধ্যপুকুরের গ্রাম্য মেয়ের অবাধ সাঁতার;

মজুর জুবার রোদে ঝলসিত দক্ষ বাহুর গ্রন্থিল পেশী।

অন্ধকারের খাকা সীমান্তে মুক্তি সেনার চোখের ঝিলিক তুমি,

বটের ছায়ায় তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীর।

স্বাধীনতা তুমি,

শাণিত কথার ঝলসানি।

চায়ের দোকানে আর মাঠের ময়দানে ঝোড়ো সংলাপ,

কালবৈশাখের দিগন্ত জোড়া মক্ত ঝাপটা।

স্বাধীনতা তুমি,

পিতার কোমল জায়নামাজের উদার জমিন।

স্বাধীনতা তুমি,

বোনের হাতের নম্র পাতায়  মেহেদীর রং।

স্বাধীনতা তুমি,

বাগানের ঘর, কোকিলের গান,

আর বয়সি বটের ঝিলমিল পাতা।

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ছন্দ

অনেকের ছন্দের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ঐতিহ্য জানতে চান তাদের জন্য আজকের আলোচনায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বেশ কিছু ছন্দ উপস্থাপন করা হয়েছে। আমরা এই ছন্দগুলো আপনাদের উদ্দেশ্যে তুলে ধরেছি আপনারা যাতে মুক্তিযুদ্ধের পটভূমি ছন্দ গুলোর মাঝে বুঝতে পারেন এবং নিজের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহ্য সুস্পষ্টভাবে জেনে নিতে পারেন ও সকলকে জানাতে পারেন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক এই ছন্দ গুলো বিজয় দিবস স্বাধীনতা দিবস কিংবা বিভিন্ন জাতীয় দিবসে কচিকাঁচাদের মাঝে বিলিয়ে দিয়ে তাদেরকে জানাতে পারবেন। নিচে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ছন্দ গুলো উপস্থাপন করা হলো:

* এদেশের মানুষের মুখ দেখেছি আমি, তাদের এই মায়াবী মুখ দেখে জীবনে আর কিছু খুঁজতে যায়নি কোথাও।

মাগো তোমার ভাবনা কেন, ভয় নেই তোমার, আমরা অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করতে জানি তোমার কোলেতে এনে দেবো মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাধীনতার দেশ।

যে জায়গা থেকে এসেছিল স্বাধীনতার ডাক, সেখানে আজও শোনা যায় শহীদদের জয় ধ্বনি ও চিৎকার।

স্বাধীনতা কখনোই স্বাধীন ছিল না অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধাদের বিনিময়ে পেয়েছি এই স্বাধীন দেশ।

স্বাধীনতা তুমি, শহীদদের রক্তে মাখা উজ্জ্বল দিনের অপেক্ষায় কাটিয়ে দিয়েছিলে নয় মাস।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিল এদেশের মানুষের ভালোবাসার মায়া আমি ছাড়তে পারবো না, তাইতো দিয়েছিল স্বাধীনতার ডাক। সেই ডাকেই তো মুক্তিযোদ্ধারা করেছে এ দেশকে স্বাধীন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top