Chorabali Logo

মোবাইল চুরি হলে খুঁজে পাওয়ার উপায়

যেকোনো সময় চুরি বা ছিনতাইয়ের মতো অপ্রীতিকর ঘটনার কারনে আমাদের মোবাইল ফোনটি হারিয়ে যেতে বা চুরি হতে পারে। তাই মোবাইল ফোন চুরি হলে খুঁজে পাওয়ার উপায় জানাটা আমাদের সকলের জন্যই দরকারী। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে যার মোবাইল ফোন চুরি হয়,  অনেক সময় ভোগান্তির মুখে পড়তে হয়। যেমন: চুরি বা ছিনতাই হওয়া মোবাইল ফোনটি কখনো কখনো অপরাধমূলক কাজে ব্যবহৃত হতে পারে। সে ক্ষেত্রে মোবাইল ও সিমের রেজিস্ট্রি মতে এর প্রকৃত মালিক গ্রেপ্তার বা হয়রানির স্বীকার হতে পারেন। তাই ফোন হারিয়ে গেলে যা করতে হবে জেনে নিন এখনই।

মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে বা ছিনতাই হলে প্রথমেই অপারেটর সার্ভিসে ফোন করে আপনার সিমটি লক করে দিতে হবে।

এরপর করতে হবে সাধারণ ডায়েরি। ফোন যেখানে হারিয়েছে তার নিকটস্থ থানায় উপস্থিত হয়ে সাধারণ ডায়েরি করতে পারবেন। এ সময় ফোনের আইএমইআই নম্বর, ফোনে ব্যবহৃত সিমের নম্বর প্রভৃতি উল্লেখ করে করতে হবে।

সাধারণ ডায়েরি করার সময় সিম রেজিস্ট্রেশন ডকুমেন্ট, ফোন ক্রয়ের রসিদ  ইত্যাদির কপি দিতে হবে। এছাড়া মূল কপিটি নিজের কাছে যত্ন সহকারে রেখে দিতে হবে। 

এরপর ডিউটিরত অফিসার একটি জিডি নম্বর প্রদান করবেন আবেদনকারীকে।  আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোবাইলটির IEMI নম্বর দিয়ে ট্র্যাক করে মোবাইলটি উদ্ধার করার চেষ্টা করবে।

পরবর্তী সময়ে যদি হারানো মোবাইল ফোনটি খুঁজে পাওয়া যায় তাহলে ওসির মাধ্যমে আবেদনকারী তা ফেরত পাবেন। খুঁজে না পেলেও ব্যবহারকারীকে থানা থেকে জানিয়ে দেয়া হবে। পুলিশের এই সেবা বিনা মূল্যে দেয়া হয়ে থাকে।

IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন

IMEI এর ফুল ফর্ম হচ্ছে International Mobile Equipment Identity

অনেকেই একটা ভুল ধারনা রাখেন যে IMEI নাম্বার শুধুমাত্র ফোনের জন্যেই হয়ে থাকে, তবে সেটা মোটেও ঠিক নয়।

IMEI নাম্বার হচ্ছে ১৫ নাম্বার সম্বলিত এমন একটি নাম্বার যেটা নেটওয়ার্কের সাথে সংযুক্ত হয় এবং সব ডিভাইসের মধ্যেই থাকে।

আপনি যে নোটবুক ব্যবহার করছেন,বা যে মডেমটি ব্যবহার করে ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত হচ্ছেন সবকিছুরই একটি আলাদা আলাদা ১৫টি সংখ্যা সংবলিত IMEI নাম্বার রয়েছে। IMEI হচ্ছে প্রত্যেকটি ডিভাইসের একটি পরিচয় নির্ধারন করার জন্যে ব্যবহারিত একটি নাম্বার। কোনো ডিভাইস যখন একটি সেলুলার নেটওয়ার্কের সঙ্গে সংযুক্ত হয় তখন সে ডিভাইসটি নেটওয়ার্কের কাছে তার IMEI এর মাধ্যমেই পরিচিত হয়ে থাকে। ফোনের বিলে, ফোনের বক্সে, ফোনের ব্যাকপার্টে আপনার এই IMEI নাম্বার দেখতে পাবেন অথবা ফোনের ডায়ালপ্যাডে গিয়ে *#06# নাম্বার দিয়ে কল করলে IMEI নাম্বার দেখতে পাবেন।

এরপর থানায় গিয়ে IMEI নাম্বার টি দিন এবং আপনার ফোনটি যখনি আবার নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত হবে সাথে সাথে তারা একটি নোটিফিকেশন পেয়ে যাবে।পুলিশ যদি গুরুত্ব দিয়ে কাজ করে, তাহলে তারা সহজেই ফোনটি অন করলে গিয়ে আপনার ফোনটি উদ্ধার করে নিয়ে আসতে পারবে। 

হারানো মোবাইল বন্ধ করার উপায়

আমাদের ফোনে প্রচুর ব্যক্তিগত তথ্য, সেনসিটিভ ডেটা এবং আমাদের ডিজিটাল জীবনের সাথে সংযোগ থাকার কারণে একটি মোবাইল ফোন হারানো একটি চাপ এবং অস্থির অভিজ্ঞতা হতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে, হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফোন বন্ধ করা আপনার গোপনীয়তা রক্ষা, অননুমোদিত অ্যাক্সেস রোধ এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে একটি অপরিহার্য পদক্ষেপ হয়ে ওঠে। হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফোন বন্ধ করার এবং সম্ভাব্য ঝুঁকি কমানোর বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে  আলোচনা করা হলো :

  • রিমোট ট্র্যাকিং এবং লকিং
  • অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন
  • পরিষেবা প্রদানকারীর সাথে যোগাযোগ করুন
  • IMEI ব্লকিং
  • আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে রিপোর্ট করুন
  • ফ্যাক্টরি রিসেট
  • পরিচিতিগুলিকে অবহিত করুন
  • লক স্ক্রীন বার্তা
  • বীমা এবং ওয়ারেন্টি
  • সিম কার্ডের অপব্যবহার রোধ করুন
  • ডেটা ব্যাকআপ
  • রিমোট আনলক পরিষেবাগুলির সাথে সতর্ক থাকুন

পুলিশ কিভাবে মোবাইল ট্র্যাক করে 

সেলফোন ট্র্যাকিংয়ের ক্ষেত্রে ফোনে থাকা জিপিএস অনেক বেশি সহায়ক হিসেবে কাজ করে। অপরাধী যদি কোনো স্মার্টফোন ব্যবহার করে আর তাতে যদি জিপিএস লাগানো থাকে তবে পুলিশের কাজ অনেক সহজ হয়ে যায়।

জিপিএস থাকলে সেল অপারেটরের সাথে যোগাযোগ না করেও ফোনের

লোকেশন পাওয়া সম্ভব।

পুলিশের কাছে কিছু সিস্টেম সেটআপ থাকে, যার মাধ্যমে তারা ফোনের জিপিএস থেকে অ্যাক্সেস নিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করে।

এছাড়া IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল ট্র্যাকিং করা যায়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top